PaharBarta.com https://www.paharbarta.com Popular online news portal in Chittagong Hill Tracts of Bangladesh Tue, 25 Sep 2018 18:47:56 +0000 bn-BD hourly 1 https://wordpress.org/?v=4.9.8 চতুর্থ শিল্প বিপ্লব : আমরা কোথায় ! https://www.paharbarta.com/bandarban/%e0%a6%9a%e0%a6%a4%e0%a7%81%e0%a6%b0%e0%a7%8d%e0%a6%a5-%e0%a6%b6%e0%a6%bf%e0%a6%b2%e0%a7%8d%e0%a6%aa-%e0%a6%ac%e0%a6%bf%e0%a6%aa%e0%a7%8d%e0%a6%b2%e0%a6%ac-%e0%a6%86%e0%a6%ae%e0%a6%b0%e0%a6%be/ https://www.paharbarta.com/bandarban/%e0%a6%9a%e0%a6%a4%e0%a7%81%e0%a6%b0%e0%a7%8d%e0%a6%a5-%e0%a6%b6%e0%a6%bf%e0%a6%b2%e0%a7%8d%e0%a6%aa-%e0%a6%ac%e0%a6%bf%e0%a6%aa%e0%a7%8d%e0%a6%b2%e0%a6%ac-%e0%a6%86%e0%a6%ae%e0%a6%b0%e0%a6%be/#respond Tue, 25 Sep 2018 18:47:56 +0000 https://www.paharbarta.com/?p=53184

বুদ্ধজ্যোতি চাকমা

দুনিয়ার হালহকিকতের যারা ন্যুনতম খরব রাখেন, বিশ্ব গ্রামে উঁকি দেওয়ার চেষ্টা করেন-বর্তমান সময়ে তাঁদের কাছে সবচেয়ে বেশি আলোচনার বিষয় হচ্ছে ‘চতুর্থ শিল্প বিপ্লব’। একইসঙ্গে তাঁদের এ বিপ্লবে শামিল হওয়ারও রুদ্ধশ্বাস প্রয়াস। হবেই না কেন? বিপ্লব মানে পরিবর্তন। পুরাতন ভেঙে নতুনের আবাহন। শামিল হতে না পারলেই চাপিয়ে যাবে। হয় বিপ্লবকে গ্রহন করুন, না হলে বিপ্লব আপনাকে গ্রাস করবে। বৈপ্লবিক পরিবর্তনের গর্ভে আপনি হারিয়ে যাবেন।
কী সেই চতুর্থ শিল্প বিপ্লব ? ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি, বিশুদ্ধভাবে আমি নিজেও জানি না। কী তার চরিত্র, কি রকম বৈশিষ্ঠ্য। এর সময়ের সন্ধিক্ষণের অস্থিরতা কোথায় গিয়ে থিতু হবে-সেই ঠিকানাও অনিশ্চিত। শুধু বলা হচ্ছে, চতুর্থ শিল্প বিপ্লব-দ্বিতীয় ও তৃতীয় শিল্প বিপ্লবের ভিত্তির ওপর দাড়িয়ে সম্পূর্ণ ডিজিটাল তথ্য প্রযুক্তি জ্ঞান-নির্ভর একটি উৎপাদন সংস্কৃতি। সেখানে শ্রমিকের কায়িক শ্রম কোনো কাজে আসবে না। ডিজিটাল প্রযুক্তি জ্ঞানের উৎকর্ষে যোগ্যদের মস্তিস্কই হবে শ্রমিক।
সবার জানা,ইউরোপে অষ্টাদশ শতকের মাঝামাঝিতে শিল্প বিপ্লব শুরু হয়েছে। উপনিবেশিক লুটপাটে এক শ্রেণি ইউরোপিয়ের পূঁজির জোগান ও শিল্পের কাঁচামালের মজুত বেড়ে যায়। জোগান পুঁজিতে শিল্পকারখানা গড়ে ওঠে। মজুত কাঁচামাল রূপান্তর হয় শিল্পপণ্যে। উপনিবেশগুলোতে বাজারজাত করা হয় শিল্পপণ্য।পূঞ্জীভূত সম্পদে আরো সম্পদ বাড়াতে শিল্পকারখানা, আরো আরো বাজার ও সম্পদের জন্য আরো আরো উপনিবেশ-সংক্ষেপে এ হলো শিল্প বিপ্লব।
শিল্প বিপ্লবের সময়কাল নির্ধারণকারিদের মতে,১৭৮৪ সালে বাস্পীয় ইঞ্জিন (স্টীম ইঞ্জিন) আবিস্কারে পানি ও বাস্পের শক্তি ব্যবহার শুরু হয়। এতে শিল্পের উৎপাদন ও পণ্যের বিপণন সরবরাহে নতুন মাত্রা যোগ করে। এর প্রায় একশত বছরে ১৮৭০ সালে বিদ্যুতের আবিস্কার হয়। জগত হয়ে ওঠে আলোকিত। বৈদ্যুতিক শক্তি উৎপাদন ক্ষমতা বহুমুখি করে দেয়। ১৭৮৪ থেকে ১৮৭০ সালের সময় হচ্ছে প্রথম শিল্প বিপ্লব। আর ১৯৬৯ সালে ইন্টারনেট এসে আবিস্কার হয় নতুন আরেক বিশ্ব। আলোকিত বিশ্ব থেকে নতুন আবিস্কৃত বিশ্ব-এ একশত বছর(১৮৭০-১৯৬৯) দ্বিতীয় শিল্প বিপ্লব। ১৯৬৯ সালে ইন্টারনেট সমগ্র বিশ্বকে হাতের মুঠোয় নিয়ে আসার পর শুরু তৃতীয় শিল্প বিপ্লব। দ্বিতীয় ও তৃতীয় বিপ্লবের প্রযুক্তিগত বহুমাত্রিক উৎকর্ষের ভিন্নতর পরিবর্তনই আজকের চতুর্থ শিল্প বিপ্লব। এতে বস্তু, ডিজিটাল প্রযুক্তি ও প্রাণ বা জীব জগতের মধ্যে সম্পর্কের দুরত্ব বায়বীয় হয়ে ওঠেছে।

চতুর্থ শিল্প বিপ্লবে প্রযুক্তি মানুষের কাজ করবে। কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা কাজের ক্ষেত্রে মানবিক ভূল শুধরে দেবে। রোবোটিক্স, ত্রিমাত্রিক প্রিন্টিং, ইন্টারনেট অব থিংস, জৈব প্রযুক্তি, জিন প্রকৌশল, ন্যানো প্রযুক্তি, বস্তু বিজ্ঞান ও শক্তি সঞ্চয় বা কোয়ান্টাম কম্পিউটিং মানবিক শ্রমের জায়গা দখল করে নেবে। পিআই ল্যাব বাংলাদেশ লিমিটেড চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের বেশ কয়েকটি উদাহরণ তুলে ধরেছে।

১. অনলাইনে একটি মগের বিজ্ঞাপণ। মগে কফি, চিনি দিলে এমনিতেই মিশে যাবে। বেঁচে যাচ্ছে চামচ, মিক্সার কেনার খরচ ও সময়। এটিই চতুর্থ শিল্প বিপ্লব।
২. ইন্টার অব থিংস আপনার চিন্তার সব দায়িত্ব নেবে। আপনার বাসার আসবাব, ফ্রিজসহ স্মার্টফোনের সঙ্গে যুক্ত থাকবে। স্মার্টফোন বলে দেবে আসবাব কখন রং দেওয়ার সময়, ফ্রিজে মাছ, মাংস ও সবজি নেই, বিদ্যুতের বিল কখন ও কত টাকা দিকে হবে-এসব আর আপনাকে চিন্তা করতে হবে না।
৩. রোবোটিক্স গার্ড আপনার বাসায় নিখুঁত ভাবে নিরাপত্তা দেবে। মানব নিরাপত্তা প্রহরির ক্লান্তি আসা, ঘুমিয়ে পড়া, গাফলতি ও অসাবধানতার কোনো সমস্যা হবে না।
৪. সমস্ত শিল্প কারখানা স্বয়ংক্রিয় চালনা বা অটোমেশন পদ্ধতিতে চলবে। সেখানে উৎপাদন প্রক্রিয়া নিয়ন্ত্রণ, তত্ত্ববধান সবকিছু নিজে নিজে হয়ে যাবে।
৫. সাইবার বাজারের নিয়ন্ত্রণে যাবে সমস্ত বিপণন ব্যবস্থা। বিপণিকেন্দ্র, কারখানা, সেবা বিপণন-সবকিছু চলে যাবে কতিপয়ের হাতে। সেই কতিপয়রা নির্ভরশীল হবে সাইবার বাজারিদের কাছে। যেমন-পরিবহন সেবা বিপণনকারি “উবার”। উবারের একটি যানবাহনও নেই। কিন্তু সমস্ত সেবা বিপণন দখল করছে তারা। এ রকম বহু উদারহরণ দেওয়া যায়।

►পার্বত্য অঞ্চলে সাবইবার বাজারের সম্ভাবনা:
তিন পার্বত্য জেলায় পর্যটন খাতে উবারের মতো একটি প্রতিষ্ঠান হতে পারে। সমস্ত পর্যটন আবাসন, পরিবহন, পথ-প্রদর্শক (গাইড) ও রেষ্টুরেন্ট খাত একিভূত করে উদ্যোক্তা ও পর্যটকদের কাছে সেবা বিপণন করা সম্ভব। উৎপাদিত ফলের ক্ষেত্রেও একইভাবে করা যায়। এ ছাড়া আরো অনেক খাতে বিপণন বাজারে সংযুক্ত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এতে পর্যটন ও ফলের বাজার দ্রুত সম্প্রসারিত হবে। এভাবেই চতুর্থ শিল্প বিপ্লবে অংশিদার হওয়ার সুযোগ আহরণের দরজা খুলে ঢুকতে হবে।

►চতুর্থ বিপ্লবে সংকট এবং আমরা কোথায়:
চতুর্থ বিপ্লবে প্রযুক্তির চরম উৎকর্ষে শাসন-প্রশাসন ও উৎপাদন ব্যবস্থা এবং মানুষের মনন কাঠামো ও সামাজিক সম্পর্ক ও মূল্যবোধ বদলে যেতে পারে। মানুষ ভোরে বিশ্বের খবর জেনে নেয়। কিন্তু পাশের ফ্ল্যাটের প্রতিবেশিকে চেনে না। অথবা খবর নেওয়ার প্রয়োজনবোধও করে না। এটি হচ্ছে- ডিজিটাল সংস্কৃতি।
বিশ্বের সমস্ত সম্পদ, উৎপাদন ও বাজার কতিপয়ের দখলে যাবে। সংকোচিত হবে কর্মসংস্থান। সম্পদ, আয় বৈষম্য ও বেকারত্ব বেড়ে বহুমাত্রিক সংকট ও অস্থিরতা দেখা দিতে পারে। বান্দরবান তথা পার্বত্য চট্টগ্রামের সকল সময়ে পিছিয়ে পড়া মানুষ এসব মোকাবেলায় প্রস্তুত বলা মুস্কিল। মোকাবেলা করতে দরকার শিক্ষা। পরিমাণগত শিক্ষা নয়, গুণগত ও প্রযুক্তি জ্ঞানের শিক্ষা। গুণগত শিক্ষার জন্য দরকার গুণগত উন্নয়ন বা টেকসই উন্নয়ন। যে উন্নয়ন প্রাকৃতিক-সামাজিক-সাংস্কৃতিক পরিবেশও প্রতিবেশকে ক্ষতিগ্রস্ত নয়, সুরক্ষা করে। ক্ষমতাহীন মানুষের সামাজিক নিরাপত্তা বলয় সুদৃঢ় হবে। যা শুধু বর্তমান প্রজন্ম নয়, ভবিষ্যত প্রজন্মের জন্যও নিরাপদ।
শুধুমাত্র টিকে থাকার প্রশ্ন যেখানে জড়িত, সেখানে টেকসই আর্থ-সামাজিক বিকাশের সুযোগ নেই। শিক্ষাকেন্দ্রিক টেকসই বা গুণগত উন্নয়নে নিরাপদ সামাজিক নিরাপত্তা নিশ্চিত হলে মানুষও টেকসই বিকাশে উদ্যোগি হবে। টেকসই বিকাশ মানে গুণগতমানসম্পন্ন শিক্ষা, স্থায়ীত্বশীল উদ্যোগ। গুণগত শিক্ষা তথ্য-মহাসড়ক হয়ে মানুষকে চতুর্থ শিল্প বিপ্লবে সংযুক্ত করবে। এখন দরকার প্রচলিত পরিমাণগত উন্নয়নকে গুণগত বা টেকসই উন্নয়নে রূপান্তর। সেখানেই আমাদের ভবিষ্যত ঠিকানা খুঁজে পাবো।

]]>
https://www.paharbarta.com/bandarban/%e0%a6%9a%e0%a6%a4%e0%a7%81%e0%a6%b0%e0%a7%8d%e0%a6%a5-%e0%a6%b6%e0%a6%bf%e0%a6%b2%e0%a7%8d%e0%a6%aa-%e0%a6%ac%e0%a6%bf%e0%a6%aa%e0%a7%8d%e0%a6%b2%e0%a6%ac-%e0%a6%86%e0%a6%ae%e0%a6%b0%e0%a6%be/feed/ 0
উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে আওয়ামীলীগ সরকারকে নির্বাচিত করুন : বীর বাহাদুর https://www.paharbarta.com/bandarban/%e0%a6%89%e0%a6%a8%e0%a7%8d%e0%a6%a8%e0%a7%9f%e0%a6%a8%e0%a7%87%e0%a6%b0-%e0%a6%a7%e0%a6%be%e0%a6%b0%e0%a6%be-%e0%a6%85%e0%a6%ac%e0%a7%8d%e0%a6%af%e0%a6%be%e0%a6%b9%e0%a6%a4-%e0%a6%b0%e0%a6%be-2/ https://www.paharbarta.com/bandarban/%e0%a6%89%e0%a6%a8%e0%a7%8d%e0%a6%a8%e0%a7%9f%e0%a6%a8%e0%a7%87%e0%a6%b0-%e0%a6%a7%e0%a6%be%e0%a6%b0%e0%a6%be-%e0%a6%85%e0%a6%ac%e0%a7%8d%e0%a6%af%e0%a6%be%e0%a6%b9%e0%a6%a4-%e0%a6%b0%e0%a6%be-2/#respond Tue, 25 Sep 2018 15:47:43 +0000 https://www.paharbarta.com/?p=53180 পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি বলেছেন, বর্তমান আওয়ামীলীগ সরকারের আমলেই পার্বত্য এলাকায় ব্যাপক উন্নয়ন কাজ অব্যাহত রয়েছে। এই সরকারের আমলেই পার্বত্য এলাকায় পার্বত্য জেলা পরিষদ ও পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের বাস্তবায়নে স্কুল ,কলেজ,মসজিদ,মন্দির ,গীর্জাসহ বিভিন্ন প্রতিষ্টানের ব্যাপক উন্নয়ন হচ্ছে। এসময় প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি আগামীতে ও উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আওয়ামীলীগ সরকারকে নির্বাচিত করার আহবান জানান।

মঙ্গলবার সকালে বান্দরবান পৌরসভার ক্যাচিংঘাটা নতুন পাড়া এলাকায় পার্বত্য জেলা পরিষদের বাস্তবায়নে তিন কোটি পয়ত্রিশ লক্ষ চৌষট্টি হাজার টাকা ব্যয়ে বীর বাহাদুর বিদ্যা নিকেতন স্কুল এন্ড কলেজ ভবনের উদ্বোধন করেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি। এসময় কেক ও ফিতা কেটে নবনির্মিত ভবনের উদ্বোধন ও পরিদর্শন করেন প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি।

এরপর পরই বান্দরবান সদরের রেইচা বাজার এলাকায় পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের বাস্তবায়নে ১৫ লক্ষ টাকা ব্যয়ে নবনির্মিত শহীদ মিনারের উদ্বোধন,পয়তাল্লিশ লক্ষ টাকা ব্যয়ে রেইচা থলি পাড়া কমিউনিটি সেন্টার ও ২০ লক্ষ টাকা ব্যয়ে রেইচা থলিপাড়া বৌদ্ধ বিহারের নবায়ন ও সংস্কার কাজের উদ্বোধন করা হয়।

পরে রেইচা থলি পাড়া কমিউনিটি সেন্টারে আয়োজন করা হয় এক আলোচনা সভা। রেইচা থলিপাড়ার কারবারী ক্যহ্লামং মার্মার সভাপতিত্বে এসময় অনুষ্টানে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে এসময় পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ক্যশৈহ্লা,পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জাকির হোসেন মজুমদার,পার্বত্য জেলা পরিষদের নির্বাহী কর্মকর্তা মো:নুরুল আবছার,সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো:নোমান হোসেন প্রিন্স ,পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য ক্য সা প্রæ,লক্ষীপদ দাস,তিংতিংম্যা,পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী আবু বিন মো:ইয়াছির আরাফাত,পার্বত্য জেলা পরিষদের উপ-সহকারি প্রকৌশলী থোয়াইচ মং মার্মা, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী অমল কান্তি দাশ, বিশিষ্ট ঠিকাদার মো:হাবিবুর রহমান ,৩নং সদর ইউপি চেয়ারম্যান সাচপ্রæ মার্মা সাবু,রাজবিলা ইউপি চেয়ারম্যান ক্যঅং প্রু মার্মা,সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি পাইহ্লা অং মার্মাসহ বিভিন্ন সরকারি বেসরকারি কর্মকর্তা ও এলাকাবাসী উপস্থিত ছিলেন।

আলোচনা সভা শেষে টিয়ার ,কাবিখা ,বিশেষ প্রকল্পের সাধারণ সোলার প্যানেল ও এলজিএসপি-৩ এর আওতায় দুস্থ অসহায় মহিলাদের মাঝে সেলাই মেশিন বিতরণ করা হয়।

]]>
https://www.paharbarta.com/bandarban/%e0%a6%89%e0%a6%a8%e0%a7%8d%e0%a6%a8%e0%a7%9f%e0%a6%a8%e0%a7%87%e0%a6%b0-%e0%a6%a7%e0%a6%be%e0%a6%b0%e0%a6%be-%e0%a6%85%e0%a6%ac%e0%a7%8d%e0%a6%af%e0%a6%be%e0%a6%b9%e0%a6%a4-%e0%a6%b0%e0%a6%be-2/feed/ 0
শহরে যততত্র গাড়ি পার্কিং, নষ্ট হচ্ছে রাঙামাটির সৌন্দর্য্য : বৃষ কেতু চাকমা https://www.paharbarta.com/rangamati/%e0%a6%b6%e0%a6%b9%e0%a6%b0%e0%a7%87-%e0%a6%af%e0%a6%a4%e0%a6%a4%e0%a6%a4%e0%a7%8d%e0%a6%b0-%e0%a6%97%e0%a6%be%e0%a7%9c%e0%a6%bf-%e0%a6%aa%e0%a6%be%e0%a6%b0%e0%a7%8d%e0%a6%95%e0%a6%bf%e0%a6%82/ https://www.paharbarta.com/rangamati/%e0%a6%b6%e0%a6%b9%e0%a6%b0%e0%a7%87-%e0%a6%af%e0%a6%a4%e0%a6%a4%e0%a6%a4%e0%a7%8d%e0%a6%b0-%e0%a6%97%e0%a6%be%e0%a7%9c%e0%a6%bf-%e0%a6%aa%e0%a6%be%e0%a6%b0%e0%a7%8d%e0%a6%95%e0%a6%bf%e0%a6%82/#respond Tue, 25 Sep 2018 15:30:51 +0000 https://www.paharbarta.com/?p=53173 রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমা বলেছেন, প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের লীলাভূমি পর্যটনখ্যাত এ জেলার সুন্দর রূপ দিন দিন হারিয়ে যেতে চলেছে। শহরের প্রবেশ মুখ থেকে শুরু করে মৎস্য উন্নয়ন কর্পোরেশন কার্যালয়, ফিসারি বাঁধ ও বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে যত্রতত্রভাবে গাড়ী রেখে এক শ্রেণীর লোক এ জেলার সৌন্দর্য্য নষ্ট করছে।

মঙ্গলবার (২৫ সেপ্টেম্বর) সকালে রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের আয়োজনে অনুষ্ঠিত জেলা উন্নয়ন কমিটির সভায় সভাপতির বক্তব্যে চেয়ারম্যান এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ফিসারি বাঁধে ভারী যানবাহন রাখার ফলে প্রতিরক্ষা গাছগুলোও ভেঙ্গে পড়ছে। যা মোটেই কাম্য নয়। এদের বিরুদ্ধে প্রশাসনকে জরুরী পদক্ষেপ গ্রহণের পরামর্শ দেন চেয়ারম্যান।

রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ সভাকক্ষে পরিষদের মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা ছাদেক আহমদের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সভায় পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদ সদস্য নুরুল আলম, রাঙামাটি জেলা প্রশাসনের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা আইসিটি) শারমিন আলম, জেলা পরিষদ সদস্য ও জাতীয় মহিলা সংস্থার প্রতিনিধি মনোয়ারা আক্তার জাহান, কাউখালী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এসএম চৌধুরী, জেলা পরিষদের নির্বাহী প্রকৌশলী কাজী আবদুস সামাদ, রাঙামাটি পুলিশ বিভাগের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রনজিত কুমার পালিত, রাঙামাটি সরকারী কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ মঈন উদ্দীন, জেলা ও উপজেলার গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

]]>
https://www.paharbarta.com/rangamati/%e0%a6%b6%e0%a6%b9%e0%a6%b0%e0%a7%87-%e0%a6%af%e0%a6%a4%e0%a6%a4%e0%a6%a4%e0%a7%8d%e0%a6%b0-%e0%a6%97%e0%a6%be%e0%a7%9c%e0%a6%bf-%e0%a6%aa%e0%a6%be%e0%a6%b0%e0%a7%8d%e0%a6%95%e0%a6%bf%e0%a6%82/feed/ 0
সংরক্ষিত বনাঞ্চল থেকে পাথর উত্তোলন, আটক ১৬ https://www.paharbarta.com/uncategorized/%e0%a6%b8%e0%a6%82%e0%a6%b0%e0%a6%95%e0%a7%8d%e0%a6%b7%e0%a6%bf%e0%a6%a4-%e0%a6%ac%e0%a6%a8%e0%a6%be%e0%a6%9e%e0%a7%8d%e0%a6%9a%e0%a6%b2-%e0%a6%a5%e0%a7%87%e0%a6%95%e0%a7%87-%e0%a6%aa%e0%a6%be/ https://www.paharbarta.com/uncategorized/%e0%a6%b8%e0%a6%82%e0%a6%b0%e0%a6%95%e0%a7%8d%e0%a6%b7%e0%a6%bf%e0%a6%a4-%e0%a6%ac%e0%a6%a8%e0%a6%be%e0%a6%9e%e0%a7%8d%e0%a6%9a%e0%a6%b2-%e0%a6%a5%e0%a7%87%e0%a6%95%e0%a7%87-%e0%a6%aa%e0%a6%be/#respond Tue, 25 Sep 2018 15:13:56 +0000 https://www.paharbarta.com/?p=53160 বান্দরবানের আলীকদম উপজেলায় মাতামুহুরী সংরক্ষিত বনাঞ্চলসহ বিভিন্ন জায়গা থেকে পাথর উত্তোলনের অভিযোগে আরো ১৬ শ্রমিককে আটক করেছে যৌথবাহিনী। এসময় একটি পাথর ভাঙ্গার মেশিনও জব্দ করা হয়।

আটকরা হলেন- আবদুর রশিদ, আবদুল মান্নান, রেজাউল করিম, শফিকুল ইসলাম, মোহাম্মদ আবদুল, মো.জামাল, আবদুর রহমান, মো. ইসহাক, মো.দুলাল, মো.কামাল হোসেন, আবদুল বারেক, রহমআলী, সালাহ উদ্দিন, ওসমান গণি, মো.আজিজ, মো.জোবায়ের। এরা সবাই আলীকদম উপজেলার বাসিন্দা বলে পুলিশকে জানিয়েছেন।

মঙ্গলবার দুপুরে আলীকদম উপজেলার চৈক্ষ্যং ইউনিয়নের কলারঝিরি জবিরাম কারবারী পাড়া থেকে তাদেরকে আটক করা হয়।

স্থানীয় ও পুলিশ জানায়, দীর্ঘদিন ধরে স্থানীয় ১৫- ২০ জন অসাধু পাথর ব্যবসায়ী প্রশাসনকে তোয়াক্কা না করে প্রায় দুই শতাধিক শ্রমিক দিয়ে মাতামুহুরী সংরক্ষিত বনাঞ্চলসহ বিভিন্ন স্থানের পাহাড় খুঁড়ে পাথর উত্তোলন করে আসছে। এমন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ ও সেনাবাহিনীর সদস্যরা যৌথভাবে ওই এলাকায় অভিযান চালায় ।পরে ওই জায়াগা থকে পাথর ভাঙার মেশিনসহ ১৬ শ্রমিককে আটক করে পুলিশ ।

আলীকদম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. নাজিমুল হায়দার বলেন, অবৈধভাবে পাথর উত্তোলনের দায়ে আটককৃতদের বিরুদ্ধে পরিবেশ সংরক্ষণ আইনে মামলা করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত রোববার একই উপজেলার সংরক্ষিত মাতামুহুরী বনাঞ্চল থেকে অবৈধভাবে পাথর উত্তোলনের সময় সেনাবাহিনীর সদস্যরা ১১ জন পাথর শ্রমিককে আটক করে। এ নিয়ে পৃথক অভিযানে ২৭ জন পাথর শ্রমিককে আটক করা হয়।

]]>
https://www.paharbarta.com/uncategorized/%e0%a6%b8%e0%a6%82%e0%a6%b0%e0%a6%95%e0%a7%8d%e0%a6%b7%e0%a6%bf%e0%a6%a4-%e0%a6%ac%e0%a6%a8%e0%a6%be%e0%a6%9e%e0%a7%8d%e0%a6%9a%e0%a6%b2-%e0%a6%a5%e0%a7%87%e0%a6%95%e0%a7%87-%e0%a6%aa%e0%a6%be/feed/ 0
নাইক্ষ্যংছড়িতে পরিচ্ছন্নতা অভিযান https://www.paharbarta.com/bandarban/%e0%a6%a8%e0%a6%be%e0%a6%87%e0%a6%95%e0%a7%8d%e0%a6%b7%e0%a7%8d%e0%a6%af%e0%a6%82%e0%a6%9b%e0%a7%9c%e0%a6%bf%e0%a6%a4%e0%a7%87-%e0%a6%aa%e0%a6%b0%e0%a6%bf%e0%a6%9a%e0%a7%8d%e0%a6%9b%e0%a6%a8%e0%a7%8d/ https://www.paharbarta.com/bandarban/%e0%a6%a8%e0%a6%be%e0%a6%87%e0%a6%95%e0%a7%8d%e0%a6%b7%e0%a7%8d%e0%a6%af%e0%a6%82%e0%a6%9b%e0%a7%9c%e0%a6%bf%e0%a6%a4%e0%a7%87-%e0%a6%aa%e0%a6%b0%e0%a6%bf%e0%a6%9a%e0%a7%8d%e0%a6%9b%e0%a6%a8%e0%a7%8d/#respond Tue, 25 Sep 2018 15:09:45 +0000 https://www.paharbarta.com/?p=53166 বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা সদরে মঙ্গলবার দিনব্যাপী স্বেচ্ছাশ্রমে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা অভিযান অনুষ্ঠিত হয়েছে।
মঙ্গলবার সকালে নাইক্ষ্যংছড়ি সদর ইউনিয়ন পরিষদের উদ্যোগে উপজেলা সদরের থানা মোড় থেকে বাজার এলাকা পর্যন্ত এই অভিযানের উদ্বোধন করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাদিয়া আফরিন কচি।
এসময় তিনি বলেন- ময়লা আবর্জনা থেকে বিভিন্ন রোগের ঝুঁকি বাড়ে। পাশাপাশি এলাকার সৌন্দর্যহানি ঘটে।
সদর ইউপি চেয়ারম্যান তসলিম ইকবাল চৌধুরী বলেন, মানুষকে সচেতন করে তোলার জন্যই এই আয়োজন। এককভাবে এই সমস্যা সমাধান করা সম্ভব না। তাই নিজের এলাকার সৌন্দর্য রক্ষায় জনসাধারণের সহযোগিতা কামনা করেন তিনি।

]]>
https://www.paharbarta.com/bandarban/%e0%a6%a8%e0%a6%be%e0%a6%87%e0%a6%95%e0%a7%8d%e0%a6%b7%e0%a7%8d%e0%a6%af%e0%a6%82%e0%a6%9b%e0%a7%9c%e0%a6%bf%e0%a6%a4%e0%a7%87-%e0%a6%aa%e0%a6%b0%e0%a6%bf%e0%a6%9a%e0%a7%8d%e0%a6%9b%e0%a6%a8%e0%a7%8d/feed/ 0
রোয়াংছড়িতে ইউএনও’র বরণ-বিদায় অনুষ্ঠান সম্পন্ন https://www.paharbarta.com/bandarban/%e0%a6%b0%e0%a7%8b%e0%a7%9f%e0%a6%be%e0%a6%82%e0%a6%9b%e0%a7%9c%e0%a6%bf%e0%a6%a4%e0%a7%87-%e0%a6%87%e0%a6%89%e0%a6%8f%e0%a6%a8%e0%a6%93%e0%a6%b0-%e0%a6%ac%e0%a6%b0%e0%a6%a3-%e0%a6%ac/ https://www.paharbarta.com/bandarban/%e0%a6%b0%e0%a7%8b%e0%a7%9f%e0%a6%be%e0%a6%82%e0%a6%9b%e0%a7%9c%e0%a6%bf%e0%a6%a4%e0%a7%87-%e0%a6%87%e0%a6%89%e0%a6%8f%e0%a6%a8%e0%a6%93%e0%a6%b0-%e0%a6%ac%e0%a6%b0%e0%a6%a3-%e0%a6%ac/#respond Tue, 25 Sep 2018 15:05:23 +0000 https://www.paharbarta.com/?p=53162 বান্দরবানে নবাগত নির্বাহী অফিসার শফিকুর রিদোয়ান আরমান শাকিলকে বরণ এবং নির্বাহী অফিসার মোঃ দিদারুল আলম এর বিদায় অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়েছে । মঙ্গলবার বিকাল সাড়ে চারটায় রোয়াংছড়ি উপজেলার মিলনায়তনে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয় । অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন রোয়াংছড়ি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ক্যবামং মারমা । বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বান্দরবান জেলা পরিষদের সদস্য কাঞ্চনজয় তঞ্চঙ্গ্যা । এসময় অনুষ্ঠানে উপজেলা প্রশাসনের সকল দপ্তরের কর্মকর্তা ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধি মেম্বার সুশীল সমাজের গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

]]>
https://www.paharbarta.com/bandarban/%e0%a6%b0%e0%a7%8b%e0%a7%9f%e0%a6%be%e0%a6%82%e0%a6%9b%e0%a7%9c%e0%a6%bf%e0%a6%a4%e0%a7%87-%e0%a6%87%e0%a6%89%e0%a6%8f%e0%a6%a8%e0%a6%93%e0%a6%b0-%e0%a6%ac%e0%a6%b0%e0%a6%a3-%e0%a6%ac/feed/ 0
পুনর্বাসিত হচ্ছে পার্বত্য তিন জেলার ৮২ হাজার উদ্বাস্তু পরিবার https://www.paharbarta.com/lead/%e0%a6%aa%e0%a7%81%e0%a6%a8%e0%a6%b0%e0%a7%8d%e0%a6%ac%e0%a6%be%e0%a6%b8%e0%a6%bf%e0%a6%a4-%e0%a6%b9%e0%a6%9a%e0%a7%8d%e0%a6%9b%e0%a7%87-%e0%a6%aa%e0%a6%be%e0%a6%b0%e0%a7%8d%e0%a6%ac%e0%a6%a4%e0%a7%8d/ https://www.paharbarta.com/lead/%e0%a6%aa%e0%a7%81%e0%a6%a8%e0%a6%b0%e0%a7%8d%e0%a6%ac%e0%a6%be%e0%a6%b8%e0%a6%bf%e0%a6%a4-%e0%a6%b9%e0%a6%9a%e0%a7%8d%e0%a6%9b%e0%a7%87-%e0%a6%aa%e0%a6%be%e0%a6%b0%e0%a7%8d%e0%a6%ac%e0%a6%a4%e0%a7%8d/#comments Tue, 25 Sep 2018 14:23:23 +0000 https://www.paharbarta.com/?p=53157 সরকারি অর্থায়নে পুনর্বাসনের আওতায় আসছে রাঙামাটি, খাগড়াছড়ি এবং বান্দরবান জেলার ৮২ হাজার উদ্বাস্তু পরিবার। এ জন্য এ তিন পার্বত্য জেলার ৮১ হাজার ৭৭৭ উদ্বাস্তু পরিবারের তালিকা মন্ত্রণালয়ে পাঠানোর অনুমোদন দিয়েছে সরকার গঠিত টাস্কফোর্স। মন্ত্রণালয়ের অনুমোদনের পর তাদের পুনর্বাসন প্রক্রিয়া শুরু হবে।

মঙ্গলবার (২৫ সেপ্টেম্বর) নগরের সার্কিট হাউসে আয়োজিত ‘ভারত প্রত্যাগত শরণার্থীদের প্রত্যাবাসন ও পুনর্বাসন এবং অভ্যন্তরীণ উদ্বাস্তু নির্দিষ্টকরণ ও পুনর্বাসন’ সংক্রান্ত টাস্কফোর্স এর ৯ম সভায় এ তালিকার অনুমোদন দেওয়া হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন টাস্কফোর্সের সভাপতি কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা।

সভায় পুনর্বাসনের জন্য ভারত থেকে প্রত্যাগত ২১ হাজার ৯০০ শরণার্থী পরিবারের তালিকাও অনুমোদন দিয়েছে টাস্কফোর্স। এছাড়াও উদ্বাস্তু ও শরণার্থীদের ‍ঋণ মওকুফ, ফৌজদারী মামলা প্রত্যাহার, প্রত্যাগত শরণার্থীদের চাকরিতে জ্যেষ্ঠতা প্রদান, রেশন দেওয়া এবং টাস্কফোর্স সদস্যদের সম্মানি ভাতা নিয়ে আলোচনা করেন টাস্কফোর্স সদস্যরা।‍

ঋণ মওকুফের বিষয়ে টাস্কফোর্সের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কৃষ্ণ চন্দ্র চাকমা সভায় জানান, উদ্বাস্তু ও শরণার্থীদের ‍ঋণ মওকুফ করতে অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের পক্ষ থেকে ‍ঋণদাতা সোনালি ব্যাংক, জনতা ব্যাংক, কৃষি ব্যাংক এবং বিআরডিবির ব্যাবস্থাপনা পরিচালকের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে। বিষয়টি অগ্রগতির পর্যায়ে রয়েছে।

উদ্বাস্তু ও শরণার্থীদের বিরুদ্ধে ৪৫১টি ফৌজদারী মামলা রয়েছে বলে সভায় জানান, খাগড়াছড়ির জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. শহিদুল ইসলাম। তিনি জানান, এসব মামলার মধ্যে ৪৪৬টি মামলা ইতোমধ্যে প্রত্যাহার করা হয়েছে। বাকি মামলাগুলোতে কিছু জটিলতা থাকলেও তা নিরসন করে দ্রুত প্রত্যাহার করা হবে।

প্রত্যাগত শরণার্থীরা সরকারি চাকরিতে জ্যেষ্ঠতা সুবিধা ভোগ করছেন বলে সভায় জানান অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (উন্নয়ন) নুরুল আলম নিজামী। তিনি জানান, এ পর্যায়ের ২৬২ কর্মকর্তাদের মধ্যে ২৫৫ জন কর্মকর্তা জ্যেষ্ঠতা সুবিধা ভোগ করছেন।

৯ম সভা থেকে টাস্কফোর্স সদস্যদের সম্মানি ভাতা দেওয়ার কথা জানান বিভাগীয় কমিশনার মো. আবদুল মান্নান। তিনি বলেন, টাস্কফোর্স সদস্যদের সভা প্রতি সম্মানি ভাতা আমরা দেবো। তবে মাসিক সম্মানি ভাতার জন্য অর্থ মন্ত্রণালয়ের অনুমোদনের প্রয়োজন রয়েছে। অনুমতি পেলে সেটিও ব্যবস্থা করা হবে।

টাস্কফোর্সের সভাপতি কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামে শান্তির সুবাতাস ছড়িয়ে দিতে সরকার আন্তরিকতার সঙ্গে কাজ করছে। এখানে পাহাড়ি বা বাঙালি কোন ভেদাভেদ নেই। সবাই বাংলাদেশের নাগরিক।

তিন পার্বত্য জেলার উদ্বাস্তু ও শরণার্থীদের পুনর্বাসনে সরকার গঠিত টাস্কফোর্স আরও কার্যকর হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

এ সময় উদ্বাস্তু ও শরণার্থী পরিবারের তালিকা থেকে কোনো পরিবারের নাম বাদ পড়লে তাদের দ্বিতীয় তালিকায় যোগ করা হবে বলেও জানান কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা।

সভায় পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মানিক লাল বণিক, স্থানীয় সরকারের বিভাগীয় পরিচালক দীপক চক্রবর্ত্তী, রাঙামাটির জেলা প্রশাসক একেএম মামুনুর রশিদ, খাগড়াছড়ির জেলা প্রশাসক মো. শহিদুল ইসলাম, তিন পার্বত্য জেলা পরিষদের প্রতিনিধিরা বক্তব্য দেন।

]]>
https://www.paharbarta.com/lead/%e0%a6%aa%e0%a7%81%e0%a6%a8%e0%a6%b0%e0%a7%8d%e0%a6%ac%e0%a6%be%e0%a6%b8%e0%a6%bf%e0%a6%a4-%e0%a6%b9%e0%a6%9a%e0%a7%8d%e0%a6%9b%e0%a7%87-%e0%a6%aa%e0%a6%be%e0%a6%b0%e0%a7%8d%e0%a6%ac%e0%a6%a4%e0%a7%8d/feed/ 24
দেশের বাজারে এনার্জি ড্রিংক বিক্রি নিষিদ্ধ https://www.paharbarta.com/lead/%e0%a6%a6%e0%a7%87%e0%a6%b6%e0%a7%87%e0%a6%b0-%e0%a6%ac%e0%a6%be%e0%a6%9c%e0%a6%be%e0%a6%b0%e0%a7%87-%e0%a6%8f%e0%a6%a8%e0%a6%be%e0%a6%b0%e0%a7%8d%e0%a6%9c%e0%a6%bf-%e0%a6%a1%e0%a7%8d%e0%a6%b0/ https://www.paharbarta.com/lead/%e0%a6%a6%e0%a7%87%e0%a6%b6%e0%a7%87%e0%a6%b0-%e0%a6%ac%e0%a6%be%e0%a6%9c%e0%a6%be%e0%a6%b0%e0%a7%87-%e0%a6%8f%e0%a6%a8%e0%a6%be%e0%a6%b0%e0%a7%8d%e0%a6%9c%e0%a6%bf-%e0%a6%a1%e0%a7%8d%e0%a6%b0/#respond Tue, 25 Sep 2018 14:03:14 +0000 https://www.paharbarta.com/?p=53154 দেশের বাজারে এনার্জি ড্রিংকের উৎপাদন, আমদানি ও বাজারজাত বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ড টেস্টিং ইনস্টিটিউশন (বিএসটিআই)। বাজারে বিক্রীত এনার্জি ড্রিংকে মাত্রাতিরিক্ত ক্যাফেইন থাকায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

গত ২৯ জুলাই বিএসটিআইয়ের সভায় ‘এনার্জি ড্রিংক’ শিরোনামে জাতীয় মান প্রণয়ন না করার নীতিগত সিদ্ধান্ত নেয়া হয় এবং কার্বোনেটেড বেভারেজ ব্যতীত ‘এনার্জি ড্রিংক’ বা অন্য কোনো নামে পণ্য উৎপাদন, আমদানি ও বাজারজাতের কোনো সুযোগ নেই মর্মে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

বিএসটিআইয়ের মুখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ও পরিচালক (সাবেক) আইএফএসটি, বিসিএসআইআর ও সফট ড্রিংক অ্যান্ড বেভারেজ শাখা কমিটির সভাপতি ড. মো. জহুরুল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় এ সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

সভায় উপস্থিত এক শীর্ষ কর্মকর্তা জানান, বাজারে বিক্রীত সফট ড্রিংকের ক্যাফেইনের মাত্রা প্রতি কেজিতে ১৪৫ এমজি থাকলেও এনার্জি ড্রিংকে এ মাত্রা প্রতি কেজিতে ৩২০ এমজির বেশি পাওয়া গেছে।

এনার্জি ড্রিংকের নামে নেশাজাতীয় পানীয় বন্ধে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলেও তিনি জানান।

প্রসঙ্গত, রাজধানীসহ সারাদেশে মাত্রাতিরিক্ত ক্যাফেইনমিশ্রিত বিভিন্ন ধরনের এনার্জি ড্রিংক অবাধে বিক্রি হচ্ছে। গত বছর খাদ্য মন্ত্রণালয়ের অধীন জাতীয় নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ বাজার থেকে সাতটি কোম্পানির উৎপাদিত এনার্জি ড্রিংক সংগ্রহ করে রাজধানীর তিনটি সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের ল্যাবরেটরিতে পরীক্ষার জন্য পাঠায়।

জাতীয় নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ ও পরীক্ষা কার্যক্রমের সঙ্গে জড়িত ল্যাবরেটরির একাধিক নির্ভরযোগ্য দায়িত্বশীল সূত্রে জানায়, পরীক্ষায় সাতটি কোম্পানির সাতটি পানীয়তে মাত্রাতিরিক্ত ক্যাফেইনের উপস্থিতি পাওয়া গেছে।

সূত্র জানায়, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (এফডিএ) এর নিয়মানুসারে যে কোনো পানীয়তে ক্যাফেইনের মাত্রা ২০০ পর্যন্ত স্বাভাবিক বলে ধরা হয়। কিন্তু দেশের তিন ল্যাবরেটরির পরীক্ষাতেই ওই সাতটি এনার্জি ড্রিংকে ক্যাফেইনের মাত্রা ৭০০ এর কাছাকাছি পাওয়া গেছে।

জাতীয় নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের এক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার নাম প্রকাশ না করার শর্তে জাগো নিউজকে জানান, ল্যাবরেটরি পরীক্ষায় সাতটি ড্রিংকসে তিনগুণের বেশি ক্যাফেইনের উপস্থিতি পাওয়া গেছে। তবে কোম্পানিগুলোর নাম প্রকাশ করতে তিনি রাজি হননি।

ওই কর্মকর্তা জানান, উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর বেপরোয়া বাজারজাতকরণের নীতি ও সুকৌশলে নির্মিত বাণিজ্যিক বিজ্ঞাপনে প্রলুব্ধ হয়ে শিশু থেকে শুরু করে সব বয়সী মানুষ স্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর এসব পানীয় পান করছে।

তিনি আরও জানান, গ্রাম-গঞ্জের ছোট টং দোকান ও হাট-বাজার থেকে শুরু করে শহরের বড় বড় শপিং মল ও ফুড কোর্টে অন্যান্য কোমল পানীয়ের চেয়ে অতিরিক্ত ক্যাফেইন মিশ্রিত এনার্জি ড্রিংক বিক্রি দিনদিন বাড়ছে। সম্প্রতি জন্মদিনের অনুষ্ঠানেও এনার্জি ড্রিংক খাওয়ানোর নতুন ধারা চালু হয়েছে। এছাড়া গ্রামেগঞ্জে শিশুদের মধ্যেও এসব ড্রিংকের ব্যাপক চাহিদা তৈরি হয়েছে।

বাংলাদেশ জাতীয় নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের সদস্য ও অতিরিক্ত সচিব মাহবুব কবির মিলন এ প্রসঙ্গে জাগো নিউজকে বলেন, বাজারে বিভিন্ন নামে যে এনার্জি ড্রিংক আছে সেগুলো ‘এনার্জি ডিংক’ নামে বিক্রি করা যাবে না। বিক্রি করতে হলে অন্য নামে কিংবা সফট ড্রিংকের রেসিপি বা উপাদান দিয়ে বানাতে হবে।

তিনি আরও বলেন, ‘সফট ড্রিংকে যে পরিমাণ ক্যাফেইন থাকার কথা তা রাখতে হবে। প্রতি কেজিতে ১৪৫ এমজির বেশি ক্যাফেইন মেশানো যাবে না। কোনো ধরনের উত্তেজক উপাদানও মেশানো যাবে না।’

বিভিন্ন স্বাস্থ্য সাময়িকীতে উল্লেখ করা হয়েছে, অতিরিক্ত ক্যাফেইন লিভারে চর্বি জমে। হৃদপিণ্ডের রক্ত সরবরাহকারী ধমনীতে রক্ত চলাচল ধীর করে দেয়। এছাড়া বুক ধরফরানি, অনিয়মিত হৃদস্পন্দন, উচ্চরক্তচাপ, ঘুমের ব্যঘাত, শরীরে অ্যাড্রেনালিন নামক হরমোনের মাত্রা বৃদ্ধি করে টানটান উত্তেজনা বৃদ্ধি ও কর্মক্ষমতা হ্রাস করে।

দিনের পর দিন অতিরিক্ত ক্যাফেইন শরীরে প্রবেশের ফলে অসুখ সারাতে ব্যবহৃত ওষুধও কাজ করে না বলে স্বাস্থ্য সাময়িকী থেকে জানা যায়।

মাত্রাতিরিক্ত ক্যাফেইনমিশ্রিত বিভিন্ন ধরনের এনার্জি ড্রিংক নেশার জগতে নীরব সংযোজন বলেও অনেক সমাজবিজ্ঞানী ও বিশেষজ্ঞ মনে করছেন। তাদের মতে, বিভিন্ন নেশাজাতদ্রব্য মাদকাসক্তরা গোপনে সেবন করলেও এনার্জি ড্রিংকের আসক্তি বাড়ছে প্রকাশ্যেই।

অত্যাধিক স্বাস্থ্যঝুঁকি থাকায় গত ৩০ অক্টোবর ১৮ বছরের কম বয়সী শিশুদের কাছে এনার্জি ড্রিংক বিক্রি নিষিদ্ধের পরিকল্পনা করে যুক্তরাজ্য সরকার।

]]>
https://www.paharbarta.com/lead/%e0%a6%a6%e0%a7%87%e0%a6%b6%e0%a7%87%e0%a6%b0-%e0%a6%ac%e0%a6%be%e0%a6%9c%e0%a6%be%e0%a6%b0%e0%a7%87-%e0%a6%8f%e0%a6%a8%e0%a6%be%e0%a6%b0%e0%a7%8d%e0%a6%9c%e0%a6%bf-%e0%a6%a1%e0%a7%8d%e0%a6%b0/feed/ 0
আজ বৌদ্ধধর্মাবলম্বীদের মধু পূর্ণিমা https://www.paharbarta.com/bandarban/%e0%a6%86%e0%a6%9c-%e0%a6%ac%e0%a7%8c%e0%a6%a6%e0%a7%8d%e0%a6%a7%e0%a6%a7%e0%a6%b0%e0%a7%8d%e0%a6%ae%e0%a6%be%e0%a6%ac%e0%a6%b2%e0%a6%ae%e0%a7%8d%e0%a6%ac%e0%a7%80%e0%a6%a6%e0%a7%87%e0%a6%b0-%e0%a6%ae/ https://www.paharbarta.com/bandarban/%e0%a6%86%e0%a6%9c-%e0%a6%ac%e0%a7%8c%e0%a6%a6%e0%a7%8d%e0%a6%a7%e0%a6%a7%e0%a6%b0%e0%a7%8d%e0%a6%ae%e0%a6%be%e0%a6%ac%e0%a6%b2%e0%a6%ae%e0%a7%8d%e0%a6%ac%e0%a7%80%e0%a6%a6%e0%a7%87%e0%a6%b0-%e0%a6%ae/#comments Mon, 24 Sep 2018 13:41:41 +0000 https://www.paharbarta.com/?p=53149 নানা মাঙ্গলিক আয়োজনের মধ্যে দিয়ে বান্দরবানে পালিত হচ্ছে বৌদ্ধধর্মাবলম্বীদের মধু পূর্ণিমা। সোমবার সকাল থেকে নানা বয়সের পূজারিরা জেলার বিভিন্ন বিহারে সমবেত হয়ে ভগবানের উদ্দেশ্যে মধু দান করেন । এছাড়াও ভক্তরা বিভিন্ন ধরনের হাতে তৈরি পিঠা, আহার এবং মোমবাতি দান করেন । বিকেল থেকে হাজার প্রদীপ প্রজ্বলন, অষ্টপরিষ্কার দান,পঞ্চশীল ও অষ্টশীল গ্রহণ করছেন ভক্তরা । পারিলেয়া বনে হস্তিরাজ কর্তৃক ভগবান বুদ্ধের সেবাপ্রাপ্তি ও বানরের মধুদানের কারণে এ দিনটি বৌদ্ধদের কাছে স্মরণীয় ও আনন্দ-উৎসবমুখর পুণ্যময় একটি দিন। তাই এই দিনটিকে বৌদ্ধ ধর্মের অনুসারীরা যথাযথ মর্যাদাপূর্ণভাবে পালন করে থাকে।

]]>
https://www.paharbarta.com/bandarban/%e0%a6%86%e0%a6%9c-%e0%a6%ac%e0%a7%8c%e0%a6%a6%e0%a7%8d%e0%a6%a7%e0%a6%a7%e0%a6%b0%e0%a7%8d%e0%a6%ae%e0%a6%be%e0%a6%ac%e0%a6%b2%e0%a6%ae%e0%a7%8d%e0%a6%ac%e0%a7%80%e0%a6%a6%e0%a7%87%e0%a6%b0-%e0%a6%ae/feed/ 91
খাগড়াছড়িতে বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের শুভ মধু পূর্ণিমা https://www.paharbarta.com/khagrachari/%e0%a6%96%e0%a6%be%e0%a6%97%e0%a7%9c%e0%a6%be%e0%a6%9b%e0%a7%9c%e0%a6%bf%e0%a6%a4%e0%a7%87-%e0%a6%ac%e0%a7%8c%e0%a6%a6%e0%a7%8d%e0%a6%a7-%e0%a6%a7%e0%a6%b0%e0%a7%8d%e0%a6%ae%e0%a6%be%e0%a6%ac-2/ https://www.paharbarta.com/khagrachari/%e0%a6%96%e0%a6%be%e0%a6%97%e0%a7%9c%e0%a6%be%e0%a6%9b%e0%a7%9c%e0%a6%bf%e0%a6%a4%e0%a7%87-%e0%a6%ac%e0%a7%8c%e0%a6%a6%e0%a7%8d%e0%a6%a7-%e0%a6%a7%e0%a6%b0%e0%a7%8d%e0%a6%ae%e0%a6%be%e0%a6%ac-2/#respond Mon, 24 Sep 2018 13:36:35 +0000 https://www.paharbarta.com/?p=53145 খাগড়াছড়িতে ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে উদযাপিত হচ্ছে বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের শুভ মধু পূর্ণিমা। সকাল থেকে বিহারে বিহারে চলছে নানা ধর্মীয় আচার অনুষ্ঠান। বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের কাছে মধু পূর্ণিমা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ তিথি। ভিক্ষুসংঘের ত্রৈমাসিক বর্ষাব্রতের দ্বিতীয় পূর্ণিমা তিথি মধু পূর্ণিমা। সকাল থেকে নানা ধরণে ফুল, ফলমূল, মধু ও খাদ্যসামগ্রী নিয়ে বিহারে আসতে থাকে বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বী নর-নারীরা। সারাদিন সমবেত প্রার্থনা, পঞ্চশীল গ্রহণ ও অষ্টদান অনুষ্ঠান শেষে সন্ধ্যায় আকাশে মঙ্গল প্রদীপ উড়ানোর মধ্য দিয়ে শেষ হবে দিনব্যাপী আনুষ্ঠানিকতার।

]]>
https://www.paharbarta.com/khagrachari/%e0%a6%96%e0%a6%be%e0%a6%97%e0%a7%9c%e0%a6%be%e0%a6%9b%e0%a7%9c%e0%a6%bf%e0%a6%a4%e0%a7%87-%e0%a6%ac%e0%a7%8c%e0%a6%a6%e0%a7%8d%e0%a6%a7-%e0%a6%a7%e0%a6%b0%e0%a7%8d%e0%a6%ae%e0%a6%be%e0%a6%ac-2/feed/ 0