একই ধরনের আরো লেখা

মন্তব্য

  1. 1

    Aung Mong

    বামাক এর পক্ষে আমি এবং সাথে তিনজন স্থানীয় সাংবাদিকসহ ভিকটিমের সাথে বান্দরবান সদর হাসপাতালে দেখা করেছি, বিস্তারিত শুনেছি এবং সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছি। বেদনাহত মা ও ভাই ঘটনার পর থেকে খাওয়া-দাওয়া ছেড়ে দিয়েছে তাদেরকে অনেক কষ্টে দুপুরের খাবার খাইয়ে দিয়েছি। প্রথম আলো সাংবাদিক বুদ্ধ জ্যোতি চাকমা খাবারের ব্যবস্থা করে দিয়েছেন। হাসপাতালে মেডিকেল টেষ্টের কাজ শেষ করে জুডিশিয়াল আদলতে ভিকটিম জবান বন্দী দিয়ে বিকালে আলীকদমের উদ্দেশ্য রওনা দেয়।

    প্রতি-উত্তর

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: স্বত্ত্বাধিকার সংরক্ষিত!